1. admin@asianexpress24.com : admin :
  2. asianexpress2420@gmail.com : shaista Miah : shaista Miah
সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৮:০৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
অলংকারী ইউনিয়ন ওয়েলফেয়ার ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্টের ৫শত পরিবার কে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  কুড়িগ্রাম ডায়াবেটিক সমিতির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত গাবুরার খোলপেটুয়া নদের বেড়িবাঁধে ভাঙন, আতঙ্কে এলাকাবাসী উচ্ছেদ অভিযান বিরত রাখতে ভোলাগঞ্জ পাথর ব্যবসায়ীদের স্মারকলিপি প্রদান বিশ্বনাথে বন্যার্তদের মাঝে আর-রাহমান ট্রাস্টের ত্রান বিতরণ করেন শফিক চৌধুরী বিশ্বনাথে বন্যার্তদের মাঝে প্রবাসী ফয়ছল মিয়ার উদ্যোগে শুকনো খাবার বিতরণ উত্তর বিশ্বনাথ ঈদগাহ নিয়ে বানোয়াট নিউজের প্রতিবাদ, সকাল ৮ টায় নামাজ পড়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন আব্দুর রশীদ লাল মিয়া’র ঈদুল আজহা’র শুভেচ্ছা জ্ঞাপন ঈদুল আজহা’র শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সেলিম আহমেদ  উলিপুরে ভিজিএফ’র চাল আত্মাসাতের প্রতিবাদে মানব বন্ধন
শিরোনাম
অলংকারী ইউনিয়ন ওয়েলফেয়ার ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্টের ৫শত পরিবার কে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ  কুড়িগ্রাম ডায়াবেটিক সমিতির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত গাবুরার খোলপেটুয়া নদের বেড়িবাঁধে ভাঙন, আতঙ্কে এলাকাবাসী উচ্ছেদ অভিযান বিরত রাখতে ভোলাগঞ্জ পাথর ব্যবসায়ীদের স্মারকলিপি প্রদান বিশ্বনাথে বন্যার্তদের মাঝে আর-রাহমান ট্রাস্টের ত্রান বিতরণ করেন শফিক চৌধুরী বিশ্বনাথে বন্যার্তদের মাঝে প্রবাসী ফয়ছল মিয়ার উদ্যোগে শুকনো খাবার বিতরণ উত্তর বিশ্বনাথ ঈদগাহ নিয়ে বানোয়াট নিউজের প্রতিবাদ, সকাল ৮ টায় নামাজ পড়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন আব্দুর রশীদ লাল মিয়া’র ঈদুল আজহা’র শুভেচ্ছা জ্ঞাপন ঈদুল আজহা’র শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সেলিম আহমেদ  উলিপুরে ভিজিএফ’র চাল আত্মাসাতের প্রতিবাদে মানব বন্ধন ফুলবাড়ীতে স্বপ্নসিঁড়ি সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে বিশ্ব রক্তদাতা দিবস পালিত বিশ্বনাথের পশ্চিম অলংকারীতে যুক্তরাজ্য প্রবাসীর দেড় লক্ষ টাকা সহায়তা প্রদান  উত্তরপ্রদেশে তিনতলা বাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড: নিহত ৫ জগন্নাথপুরে এসআই মিজানুর ক্লোজড বিশ্বনাথে বাস লেগুনার মুখোমুখি সংর্ঘষে নিহত -২

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব ও আমাদের করণীয়

  • Update Time : বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১
  • ৩৬৩ Time View

সারা বিশ্বে মহামারী করোনাভাইরাস এর তান্ডব এখনো শেষ হয়নি। এরই মধ্যে লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে পশ্চিম ইউরোপের একাধিক দেশে ভয়াবহ বন্যা টাইফুন,ভূমিধস আঘাত এনেছে। উন্নত রাষ্ট্রগুলো যাদের অর্থ, সমরাস্ত্র, উন্নতবাহিনী কোন কিছুরই কমতি নেই!কিন্তু প্রকৃতিক এই বিপর্যয় সামাল দিতে এগুলো যে কাজেই আসছে না। যেমন টা covid-19 এর প্রথম ধাক্কায় হয়েছিলো। গত দুইদিন ধরে নিউজে দেখছি সদ্য করোনাভাইরাস এর ধাক্কা থেকে উঠে আসা চীনে ভয়াবহ টাইফুনের আঘাতে লণ্ডভণ্ড দেশের বিশাল অংশ। একই সময়ে বহু দূরের দেশ অস্ট্রেলিয়াতেও ভয়াবহ প্রাকৃতিক বিপর্যয়। আর এই দুর্যোগ গুলোর প্রধান কারণ হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তন। এতে বুঝাই যাচ্ছে বাকি রাষ্ট্র গুলোর উপর ও এই ভয়াবহ বিপদ আসা সময়ের ব্যাপার। এখন আসি আমাদের বাংলাদেশে বর্তমান চিত্রে। সারা বিশ্বে যখন মহামারী ভাইরাসের সংক্রমণ কমে এসেছে আমাদের দেশে উল্টো মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে। আল্লাহ না করুক এই মুহূর্তে যদি অন্যকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ আসে দেশের ও জনগণের পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে যে ঠেকবে আল্লাহই ভালো জানেন। বর্তমান ও আগামীর পৃথিবীতে সবচাইতে বড় চ্যালেঞ্জ হবে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট সমস্যাগুলো মোকাবেলা। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বিশ্বের যেসব দেশ সবচেয়ে অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে, বাংলাদেশ তার মধ্যে অন্যতম। দেশটির লাখ লাখ নাগরিক নানা সময়ে ঘূর্ণিঝড়, বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, দাবদাহ ও খরার মতো মারাত্মক প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখোমুখি হয়েছে এবং সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে গাঙ্গেয় ব-দ্বীপের অনেক অংশ ডুবে যাবে।


বৈশ্বিক জলবায়ুর পরিবর্তন কিছু কিছু অঞ্চলের আবহাওয়ার সংকটময় অবস্থাকে আরও শোচনীয় করে তুলবে এবং উপকূলীয় অঞ্চলে বসবাসকারী মোটামুটি ঝুঁকিতে থাকা মানুষকে আরও বেশি হুমকির মুখে ফেলবে।বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ভবিষ্যতে বাংলাদেশে এই ধরনের দুর্যোগ ঘন-ঘন হতে থাকবে।
ফলে উপকূলের মানুষকে সুরক্ষা দেবার জন্য নানা পদক্ষেপ নিতে হবে। এজন্য লাগবে টাকা। তাই বাংলাদেশ উচিত এখন থেকেই জোরালো ভাবে আন্তজার্তিক সম্মেলন গুলোতে এই বিষয়ে কাজ করে ফান্ড সংগ্রহ করা।
এতদিন উন্নত রাষ্ট্রগুলো জলবায়ু পরিবর্তন রোধে নানা পদক্ষেপ কিংবা অর্থ দান পরিকল্পনা প্রণয়ন করলেও জোরালোভাবে কোন দেশই তাদের পরিবেশের হুমকি স্বরূপ নেতিবাচক কর্মসূচি গুলো বন্ধ করেনি। যেহেতু এবার তারাই ভুক্তভোগী হচ্ছে তাই আশা করাই যায় আগামীর জলবায়ু বিষয়ক সম্মেলন গুলোতে তারা বিশেষভাবে গুরুত্ব দিবেন। —
এবারের জলবায়ু সম্মেলনে চারটি লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে:
১. ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নির্গমনের মাত্রা ব্যাপকভাবে কমিয়ে আনা। কারণ ২০৫০ সালের মধ্যে পৃথিবীব্যাপী কার্বন নিঃসরণের পরিমাণ একেবারে শূন্যতে নামিয়ে আনতে হলে এটি করা জরুরি।
২. জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে যেসব প্রাকৃতিক দুর্যোগ হতে থাকবে সেগুলোর হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিতে হবে।
৩. এসব কাজ করার জন্য অনেক অর্থের প্রয়োজন। সেজন্য প্রতিবছর ১০০ বিলিয়ন ডলারের তহবিল করার জন্য উন্নত দেশগুলোকে ভূমিকা রাখতে হবে।
৪. জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলার জন্য সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে।

যাইহোক সর্বোপরি সমস্ত কিছুর মালিক একজনই মহান সৃষ্টিকর্তা যা চান মানুষ তা কখনোই ফেরাতে পারবেনা। আর তিনি যা না চান আমরা তা কখনো করতেও পারবো না। তাই মানুষের উচিত যার যার অবস্থান থেকে প্রচুর প্রার্থনা করা। আল্লাহর দেওয়া জ্ঞান, বুদ্ধি, বিবেক, বিজ্ঞান কাজে লাগিয়ে পরিবেশ এবং পৃথিবী কে নিরাপদ আবাসস্থল করা। বিশেষ করে আমার প্রিয় মাতৃভূমি সোনার বাংলাদেশ কে আল্লাহ হেফাজত করুক। আমিন

সৈয়দ মনোয়ার উল্লাহ,
 সমাজকর্মী (বি,এস,এস-এম,এস,এস)
sayed.manoar16@gmail.com

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Customized By BreakingNews